নিজস্ব প্রতিবেদক:
রাজধানীর পুরানা পল্টনের একটি ভবনে অভিযান চালিয়ে জাল নোট তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জামাদিসহ একটি চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করেছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের গুলশান বিভাগের একটি টিম।

আটকদের মধ্যে ৪ জন পুরুষ ও একজন নারী সদস্য রয়েছেন।

তারা হলেন—কারখানার অর্থদাতা শাহিন, হান্নান, কাওসার, আরিফ, ইব্রাহিম ও নারী সদস্য খুশি।
শুক্রবার (১৪ আগস্ট) বিকেল ৩টা থেকে ৪টা পর্যন্ত পুরানা পল্টনে বিএনপির পার্টি অফিসের দক্ষিণ পাশের ২৫/২ নম্বর ভবনের ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলায় অভিযান পরিচালনা করে তাদের আটক করে ডিবি পুলিশ।

ডিবি পুলিশের গুলশান বিভাগের উপ-কমিশনার (ডিসি) মো. মশিউর রহমান এ খবর নিশ্চিত করে বলেন, ওই ভবনের ৫ম ও ৬ষ্ঠ তলা থেকে প্রায় ৫/৬ কোটি জাল নোট তৈরির মতো কাঁচামাল ও নোট তৈরির বিভিন্ন সরঞ্জামাদি উদ্ধার করা হয়। একই সঙ্গে তৈরি করা ৫৭ লাখ টাকা মূল্যের জাল নোট জব্দ করা হয়েছে।

গোয়েন্দা পুলিশের এই কর্মকর্তা আরও বলেন, পুরানা পল্টনের ওই ভবনের পঞ্চম এবং ষষ্ঠ তলা ভাড়া নিয়ে চক্রের সদস্যরা জালনোট তৈরির কারখানা গড়ে তোলেন। এই চক্রটি ঈদের পর থেকে এই কারবার শুরু করে। ঈদুল আজহার আগে তারা ঢাকা শহরের বাইরে বিভিন্ন জায়গায় অবস্থান করছিলেন। ঈদ চলে যাওয়ার পর তাদের আর কেউ খুঁজবে না এই ভেবে তারা পল্টনে তাদের কারখানা গড়ে তোলেন।

আসামিদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের ভিত্তিতে উপ-কমিশনার মো. মশিউর রহমান বলেন, জাল নোট তৈরির এই কারখানার অর্থদাতা ছিলেন আটক শাহিন। তিনি একাধিক মামলার আসামি। আটক হান্নান প্রিন্টম্যান হিসেবে কাজ করতেন। এছাড়াও জান নোটের বিশেষ কাগজ তৈরি করতেন কাওসার। পুরো কারখানার ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্বে ছিলেন আরিফ। ছাপাকৃত জাল নোট বিভিন্ন জায়গায় পৌঁছে দেয়ার দায়িত্বে ছিল ইব্রাহিম এবং নারী সদস্য খুশির।

উপ-কমিশনার জানান, আটক আসামিরা এর আগেও একই অভিযোগে একাধিকবার গ্রেফতার হয়ে কারাগারে ছিলেন। তাদের বিরুদ্ধে পল্টন থানায় বিশেষ ক্ষমতা আইনে একটি মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *