ইউএনবি:

ভোলায় প্রতীকী পুলিশ সুপার (এসপি) হলেন ভোলা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী তাসনিম আজিজ রিমি।

মাত্র এক ঘণ্টার জন্য প্রতীকী পুলিশ সুপার হয়ে দায়িত্ব নিয়েই ভোলা জেলাকে নারীবান্ধব করতে আর নারীর প্রতি সহিংসতা রোধে সুপারিশমালা তুলে ধরেন তিনি। সে প্রস্তাবনা বাস্তবায়নের ঘোষণাও দিয়েছে পুলিশ প্রশাসন।

বুধবার সকালে ভোলা পুলিশ সুপার কার্যালয়ে পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সারের কাছ থেকে ব্যতিক্রমী এক আয়োজনে প্রতীকীভাবে এক ঘণ্টার পুলিশ সুপারের দায়িত্ব গ্রহণ করেন স্কুলছাত্রী রিমি।

কণ্যাশিশু দিবস উপলক্ষে, নারীর ক্ষমতায়নের জন্য বেসরকারি সংস্থ্যা প্লান ইন্টারন্যাশনালের উদ্যোগে প্রতিকী এসপি’র উপস্থিতিতে এনসিটিএফ’র জেলা সমন্বয়কারি আদিল হোসেন তপুর সঞ্চালনায় আলোচনায় অন্যান্যের মধ্যে অংশ নেন ভোলা পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার, ভোলা শিশু বিষয়ক কর্মকর্তা আক্তার হোসেন, ভোলা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের শিক্ষিকা শারমিন জাহান শ্যামলী।

এছাড়া অনুষ্ঠানে প্রতীকী পুলিশ সুপার তাসনিম আজিজ রিমির বাবা তারেক আবদুল আজিজ এবং মা মেরিনা বেগম উপস্থিত ছিলেন।

এক ঘণ্টার পুলিশ সুপার রিমি নারীর প্রতি সহিংসতা বন্ধ, বাল্য বিয়ে রোধসহ ভোলায় নারী নির্যাতনের বিভিন্ন তথ্য ও উপাত্ত তুলে ধরেন তিনি।

ভোলার পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার বলেন, ‘প্রতীকী পুলিশ সুপার যে বিষয়গুলো তুলে ধরেছেন, তাতে আমি বিস্মিত। নারীরা ধর্ষণ, ইভটিজিং এবং বাল্য বিয়েসহ যেসব সামাজিক ব্যাধিতে আক্রান্ত হচ্ছেন প্রতীকী পুলিশ সুপার সেসব তুলে ধরেছেন। এ বিষয়গুলো অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে।’

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *