পাবনা প্রতিনিধি:

আজ বুধবার দুপুরে উল্লাপাড়ার এনায়েতপুর আদর্শ গ্রামে ঋণের সুদ দিতে না পারায় এক গৃহবধূকে গাছের সঙ্গে বেঁধে পাশবিক নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে।

নির্যাতিতা গৃহবধূর নাম সোমা রানী দাস, তার স্বামীর নাম  সঞ্জীব দাস । এ গৃহবধূকে গাছে বেঁধে নির্যাতনের ভিডিওটি এরই মধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। পরে পুলিশ গিয়ে নির্যাতনের শিকার ওই গৃহবধূকে উদ্ধার করে।

ভুক্তেভোগী সোমা রানী দাস জানান, একই গ্রামের আবদুল কাদেরের মেয়ে দিপ্তী বেগমের কাছ থেকে তিনি ৫০ হাজার টাকা সুদে নেন।নিয়মিত সুদের টাকা সে পরিষোধও করে আসছিল। করোনার কারনে আর্থিকভাবে অসুবিদায় পড়ে সুদ না দিতে পারায়।দিপ্তী বেগম তার লোকজন নিয়ে বুধবার তাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে নির্যাতন করেন। এ সময় সোমার কাছে আরও ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন দিপ্তী।

সোমাকে নির্যাতনের দৃশ্যটি ভিডিও ধারণ করেন স্থানীয় বাসিন্দারা। অভিযোগ রয়েছে, দিপ্তী বেগম দীর্ঘদিন ধরে সুদের ব্যবসা করে আসছেন। তিনি গ্রামের অত্যন্ত প্রভাবশালী ব্যক্তি। স্থানীয় বাসিন্দারা জানান, দিপ্তী বেগম মাঝে মধ্যেই সুদের টাকা আদায়ে অসহায় নারী-পুরুষদের উপর তার ক্যাডারদের দিয়ে হামলা ও  নির্যাতন চালায়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *