নিজস্ব প্রতিবেদক:
পাঁচ দিন ধরে আটকে থাকা ভারতের পেঁয়াজবাহী ট্রাকগুলো অনুমতি সাপেক্ষে আগামীকাল শনিবার হিলি স্থলবন্দর দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে বলে জানিয়েছেন ভারতের রপ্তানিকারকরা। আজ শুক্রবার এ তথ্য জানান হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি হারুন উর রশীদ হারুন। তিনি বলেন, ‘গত দুই দিন ধরেই পেঁয়াজগুলো আসবে আসবে বলা হচ্ছে। তবে দিল্লি থেকে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের কোনো নোটিফিকেশন আসেনি। আজ শুক্রবার যেকোনো সময়ে এ সংক্রান্ত নোটিফিকেশন আসার কথা রয়েছে বলে ভারতীয় রপ্তানিকারকরা আমাদের জানিয়েছেন। আজ যদি সেই নোটিফিকেশন চলে আসে তাহলে আগামীকাল শনিবার থেকে ভারতে আটকে থাকা আগের টেন্ডারের পেঁয়াজগুলো তারা রপ্তানি করবে।’

হারুন উর রশীদ হারুন বলেন, ‘অভ্যন্তরীণ বাজারে পেঁয়াজের সংকট ও মূল্যবৃদ্ধির অজুহাত দেখিয়ে ভারত সরকার পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ায় আমাদের প্রায় ২৫০টি পেঁয়াজবোঝাই ট্রাক ভারতের অভ্যন্তরে বিভিন্ন সড়কে অবস্থান করছে। অতিরিক্ত গরম ও বৃষ্টির কারণে কিছু ট্রাকের পেঁয়াজে ইতিমধ্যে পচন ধরতে শুরু করেছে। এই পেঁয়াজগুলো যদি তারা রপ্তানি না করে তাহলে আমরা যারা আমদানিকারক রয়েছি তারা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হব। তবে এর একটি সুসংবাদ ভারতীয় রফতানিকারকরা আমাদের জানিয়েছেন। তা হলো, গত রোববার আমাদের টেন্ডার করা পেঁয়াজগুলো তারা রপ্তানি করবে।’

তিনি আরও বলেন, ‘একইসঙ্গে আমরা ও ভারতীয় রপ্তানিকারকরা চাপ সৃষ্টি করছি, অন্তত যে ট্রাকগুলো পেঁয়াজ নিয়ে দাঁড়িয়ে রয়েছে সেই পেঁয়াজগুলো আপাতত যাতে দেওয়া হয়। এছাড়াও আমাদের যে ১০ হাজার টনের এলসি দেওয়া ছিল, আমরা সে বিষয়ে চেষ্টা করছি ও রপ্তানিকারকদের চাপ সৃষ্টি করছি যাতে দ্রুত সেই পেঁয়াজগুলোও বাংলাদেশে রপ্তানি করা হয়। শুধু ভারতের ওপর মুখাপেক্ষী হয়ে না থেকে আমরা ইতিমধ্যে পাকিস্তান, মিসর, তুরস্কসহ বিভিন্ন দেশে পেঁয়াজের এলসি খুলেছি। যা আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে চলে আসবে। তাতে পেঁয়াজের বাজার নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *