নিজস্ব প্রতিবেদক:

আজ ২৪ অক্টোবর,দিনটি অন্য আর ১০টা সাধারণ দিনের মতো নয়। আজ বিশ্ব পোলিও দিবস। একজন বাংলাদেশি হিসেবে এই তথ্য আপনাকে গর্বিত করবে যে, দেশে একটা সময় শত শত পোলিও রুগী শনাক্ত হয়েছিল। কিন্তু গত ১৪ বছরে বাংলাদেশে পোলিও রোগীর সংখ্যা শূন্যের কোটায়।

গত এক যুগেরও বেশি সময় ধরে আজকের দিনেই আয়োজিত হচ্ছে আন্তর্জাতিক পোলিও দিবস। সারা পৃথিবীতেই এখন পোলিও রোগের সংখ্যা কমেছে। কিন্তু বিশ্ব সাস্থ্য সংস্থা কমাতে নয়, রোগের একেবারে নির্মূলে বিশ্বাসী।

দিবসটি উপলক্ষে বাণী দিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। রাষ্ট্রপতি তার বাণীতে বলেন, বাংলাদেশে নিয়মিত টিকাদান কর্মসূচি সারা বিশ্বে একটি অনুকরণীয় দৃষ্টান্ত। অতীতে মহামারী আকার ধারণ করলেও টিকাদান কর্মসূচি পোলিও নির্মূলে সাফল্য অর্জন করেছে।

প্রধানমন্ত্রী তার বাণীতে দেশের পোলিও টাস্কফোর্স কমিটির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হওয়ায় ড. ইশতিয়াক জামানকে অভিনন্দন জানান। পাশাপাশি ড. ইশতিয়াক পোলিও আন্দোলন আরও এগিয়ে নেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।

দিবসটি উপলক্ষে শুক্রবার জাতীয় প্রেস ক্লাবে রোটারি বাংলাদেশ পোলিও প্লাস কমিটির পক্ষ থেকে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। এতে কমিটির চেয়ারম্যান ড. ইশতিয়াক জামান বলেন, পৃথিবী থেকে পোলিও নির্মূল হলেও এখনও দুটি দেশে ১০০ শিশু পোলিও আক্রান্ত আছে। পোলিও নির্মূলে বিশ্বব্যাপী রোটারি ক্লাব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। বিশ্বের প্রায় ২৫০ কোটি শিশুকে পোলিও মুক্ত রাখতে রোটারি ক্লাব নিরন্তর কাজ করেছে। পোলিও নির্মূলে রোটারি ক্লাব এক বিলিয়ন ডলারের তহবিল গঠনে চেষ্ট করছে। দেশে প্রায় ৪ শতাধিক রোটারি ক্লাবকে দেড় হাজার ডলার করে অনুদান দিতে বলা হয়েছে। এ অর্থ পোলিও মুক্ত বিশ্ব গড়তে অনেক সহযোগিতা করবে।

এখনও গোটা বিশ্বে ১০০ টি পোলিও রোগ ধরা পড়েছে। এর সবকটিই ধরা পড়েছে নাইজিরিয়া, পাকিস্তান এবং আফগানিস্তানে।  বিশ্ব সাস্থ্য সংস্থা তাই এই তিন দেশে বিশেষভাবে নজর দিচ্ছে।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *