নিজস্ব প্রতিবেদক:

আজ শনিবার (৩ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বহুল প্রতীক্ষিত বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন (বাফুফে) নির্বাচন। রাজধানীর একটি পাঁচতারকা হোটেলে আজ দুপুর ২টা থেকে শুরু হবে ভোট গ্রহণ, চলবে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত। আগামী চার বছরের জন্য ১৩৯ জন কাউন্সিলর তাদের নির্বাচিত প্রতিনিধি ঠিক করবেন।

সভাপতি, সিনিয়র সহসভাপতি, সহসভাপতি ও সদস্যসহ মোট ২১ টি পদের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছেন ৪৭জন প্রার্থী।

করোনাভাইরাসের প্রভাবে বাফুফে নির্বাচনে থাকতে পারছেন না ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফার কোনো প্রতিনিধি। তাই নির্বাচন পর্যবেক্ষণের জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের (এনএসসি) যুগ্ম সচিব তৌহিদুর রহমানকে আহ্বায়ক করে তিন সদস্যের একটি মনিটরিং সেল গঠন করা হয়। নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে হচ্ছে কি না, তা পর্যবেক্ষণ করবে এই সেল।

এই নির্বাচনে সম্মিলিত পরিষদের বিপক্ষে লড়বে সমন্বয় পরিষদ। সম্মিলিত পরিষদের ২১ সদস্যের বিপরীতে ১৯ সদস্য দিয়েছে সমন্বয় পরিষদ। সভাপতি ও এক সহসভাপতি পদে প্রার্থী দিতে পারেনি সমন্বয় পরিষদ।সম্মিলিত পরিষদের নেতৃত্ব দিচ্ছেন কাজী মো. সালাউদ্ধিন। সমন্বয় পরিষদের নেতৃত্বে রয়েছেন,শেখ মোহাম্মদ আসলাম।

সভাপতি পদে শফিকুল ইসলাম মানিক এককভাবে লড়বেন কাজী সালাউদ্দিনের বিপক্ষে । গত ১২ বছর বাফুফের সহসভাপতির দায়িত্ব পালন করা বাদল রায়েরও একই পদে নির্বাচন করার কথা ছিল। কিন্তু শেষ মুহূর্তে নাম প্রত্যাহার করে নেন তিনি। তবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে নাম প্রত্যাহার না করায় ভোটের ব্যালটে নাম থাকবে বাদল রায়ের। তাই সভাপতি পদের লড়াইয়ে নাম আছে কাজী সালাউদ্দিন, শফিকুল ইসলাম মানিক ও বাদল রায়ের। কিন্তু মূল প্রতিদ্বন্দিতায় থাকছে মানিক বনাম সালাউদ্দিন।

ফুটবল উন্নয়নে দুটি প্যানেলের প্রতিশ্রুতি একই সূত্রে গাঁথা। সম্মিলিত পরিষদ নিঃসন্দেহে শক্তিশালী প্যানেল। নিজের পরিষদ নিয়ে নির্বাচনী ইশতেহারে ৩৬টি প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন সালাউদ্দিন। এর মধ্যে অন্যতম বাংলাদেশকে ফিফা র‍্যাঙ্কিংয়ে ১৫০-এর মধ্যে নিয়ে আসা।

অন্যদিকে সমন্বয় পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে ২৪ দফা নির্বাচনী ইশতেহার ঘোষণা করেছেন। সমন্বয় পরিষদের এই ইশতেহারে আছে ফুটবলে ১২ বছর মেয়াদি দীর্ঘ পরিকল্পনা। জেলা ও উপজেলায় লিগ, বয়সভিত্তিক ফুটবল, সোহরাওয়ার্দী ও শেরেবাংলা কাপ নিয়মিত আয়োজন করা। আর পেশাদার ফুটবল লিগকে ঢেলে সাজানো পরিকল্পনা তাদের। প্রতি জেলায় শহীদ শেখ রাসেলের নামে জাতীয় ক্লাব চ্যাম্পিয়নশিপ আয়োজন, আন্তস্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় টুর্নামেন্ট আয়োজন করতে চায় সমন্বয় পরিষদ।

নতুন সভাপতি পদে লড়তে যাওয়া মানিকের প্রতিশ্রুতি ২১টি। এর মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো ২০৩৩ সালে শক্তিশালী অলিম্পিক দল গড়ে অলিম্পিক গেমসে খেলার যোগ্যতা অর্জন করা।

দুটি পরিষদেরই লক্ষ্য বাংলাদেশের ফুটবলকে এগিয়ে নেওয়া। কিন্তু, আপাতত ভোটের মঞ্চে এগিয়ে আছে সালাউদ্দিনের নেতৃত্বে থাকা সম্মিলিত পরিষদ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *