পটুয়াখালী,প্রতিনিধি:

জেলার রাঙ্গাঁবালীর আগুনমূখা নদীতে ডুবে যাওয়া স্পীড বোটের নিখোঁজ যাত্রীদের ৫ জনের মরদেহ নদীটির বিভিন্ন সীমানা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত মরদেহ গুলোর মধ্যে দুইজন ব্যাংকার ও একজন পুলিশ সদস্যের লাশ ও রয়েছে বলে জানিয়েছে কোস্টগার্ড ও পুলিশ।

আজ শনিবার সকালে আগুনমূখা নদীর বিভিন্নেএলাকা থেকে মরদেহগুলো উদ্ধার করা হয়।

৪ জনের লাশ নদীর বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। বাকি ১জনের লাশ কাকড়ার চর থেকে উদ্ধার করে কোস্টগার্ড

উদ্ধার হওয়া মরদেহ গুলো হল- রাঙ্গাঁবালী থানার পুলিশ কনস্টেবল মো. মহিব্বুল্লাহ ও কৃষি ব্যাংক বাহেরচর শাখার পরিদর্শক মো. মোস্তাফিজুর রহমান, আশা ব্যাংকের বাহেরচর খালগোড়া শাখার কর্মকর্তা কবির হোসেন, দিনমজুর মো. ইমরান ও মো. হাসান মিয়া। তাদের সবার বাড়ি পটুয়াখালী জেলার বিভিন্ন এলাকায়।

রাঙ্গাঁবালী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ওসি আলী আহমেদ জানান, সকাল থেকে লাশ গুলি আগুনমূখা নদীর বিভিন্ন স্থানে ভাসমান অবস্থায় দেখে উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত লাশ কোড়ালিয়া লঞ্চঘাট এলাকায় রাখা হয়েছে। শনাক্ত করে তাদের পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে জেলার মূল ভূখন্ড থেকে বিচ্ছিন্ন উপজেলা রাঙ্গাঁবালীর কোড়ালিয়া লঞ্চঘাট থেকে গলাচিপা উপজেলার পানপট্টি লঞ্চঘাট যাওয়ার পথিমেধ্যে আগুনমূখা নদীতে প্রচন্ড ঢেউয়ের কবলে পড়ে তলা ফেটে যাত্রীবাহি স্পীডবোট ডুবির ঘটনায় ১৭ যাত্রীর মধ্যে ১২জন উদ্ধার হলেও ৫ জন যাত্রী নিখোঁজ ছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *