শাহজালাল ভূঁইয়া,ফেনী:

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) এলেই লোকাল জুয়াড়িদের দৌরাত্ম্য বাড়ে। বেপরোয়া হয়ে সর্বস্বান্ত হয় কেউ কেউ। তাই এই জুয়ার প্রভাব কমাতে ফেনী জেলার পরশুরাম পৌরসভায় এবার নেয়া হয়েছে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ। আইপিএল খেলা চলাকালীন সময়ে হাটেঘাটে কিশোর-যুবকদের জুয়া রোধে ক্যাবল নেটওয়ার্ক (ডিস) বন্ধের ঘোষণা দিয়েছেন পৌরসভাটির মেয়র ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নিজাম উদ্দিন আহমেদ চৌধুরী সাজেল। তার এ ঘোষণা অভিভাবক সহ সচেতন মহলে বেশ প্রশংসাও কুঁড়িয়েছে।

জানা গেছে, আইপিএল খেলা দেখার জন্য শহর ও গ্রামাঞ্চলের হাট-বাজারের চায়ের দোকানে, হোটেল-রেস্তোরায় বিভিন্ন বয়সের ও শ্রেণি পেশার মানুষ ভীড় জমায়। এ সুবাদে সীমান্তবর্তী উপজেলা সদর ও গ্রামীন হাটে-বাজারে কিছু মানুষ আইপিএলের চার-ছক্কার জুয়ায় মেতে উঠে। বলের উইকেট ও ব্যাটের রানে অনেকে সর্বস্বান্ত হন।

প্রতিবারের মত আইপিএল চলাকালীন সময়ে জুয়ার মহোৎসব থামাতে এবার খেলা চলাকালীন সময়ে পৌরসভা ও উপজেলার ৩ ইউনিয়নে ক্যাবল নেটওয়ার্ক (ডিস) বন্ধের ঘোষণা দিয়ে আলোচনায় আসেন সাজেল চৌধুরী।

তিনি জানান,”আমাদের কাছে এমনও অভিযোগও আছে যে, আইপিএলের ম্যাচকে কেন্দ্র করে জুয়া খেলার টাকা যোগাড় করার জন্য স্থানীয় যুবকরা অর্ধেক দামে নিজেদের মোটর সাইকেল, ব্যাটারি চালিত যান বিক্রি করেছে।”

খেলা চলাকালীন সময় কেবল সংযোগ বন্ধ রাখার পাশাপাশি এলাকার ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেট সেবার গতিও সীমিত রাখা হবে বলে জানান নিজাম উদ্দীন চৌধুরী। এছাড়া প্রতিটি এলাকায় আড্ডা ঠেকাতে টিম করে দেয়া হয়েছে। তারা খেলা চলাকালীন সময়ে তদারকীতে থাকবে।

উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক ইয়াছিন শরীফ মজুমদার জানান, জুয়া ও নেশার কবল থেকে যুব সমাজকে রক্ষা করতে হবে। এজন্য আইপিএল খেলা চলাকালীন সময়ে ডিস বন্ধের সিদ্ধান্ত সাধুবাদ জানাই।

পরশুরাম মডেল থানার ওসি মো: শওকত হোসেন  জানান, জুয়ার বিষয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য পেলে পুলিশ অভিযান পরিচালনা করবে।

এই বিষয়ে কোনো আনুষ্ঠানিক বা লিখিত নির্দেশনা দেয়া হয়নি উপজেলা প্রশাসনকে। তবে পরশুরাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইয়াছমিন আকতার জানান তিনি এই নির্দেশনা সম্পর্কে মৌখিকভাবে জানতে পেরেছেন।

পৌরসভার পক্ষ থেকে এমন সিদ্ধান্ত নেয়া যায় কিনা জানতে চাইলে, তিনি বলেন, পৌরসভা প্রশাসন চাইলে সমাজের কল্যাণে এধরণের উদ্যোগ নিতে পারেন।

 

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *