আন্তর্জাতিক ডেস্ক:


মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা কমতে শুরু করেছে ভারতে। রোববার দেশটিতে আক্রান্ত হয়েছে এক লাখ এক হাজার মানুষ। মারা গেছে দুই হাজার ৪৩৭ জন। দৈনিক শনাক্ত কমায় সোমবার থেকে বেশ কয়েকটি রাজ্যে বিধিনিষেধ শিথিল করছে কর্তৃপক্ষ।

চলতি বছরের মার্চে করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউয়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ে ভারত। প্রতিদিন লাখ লাখ করোনা রোগীর চিকিৎসা দিতে হিমশিম খায় দেশটির হাসপাতালগুলো। তীব্র অক্সিজেন সংকটে দিশেহারা হয়ে পড়ে রাজধানী দিল্লিসহ বেশ কয়েকটি শহর। ভাইরাসটি নিয়ন্ত্রণে কঠোর লকডাউনের পাশাপাশি টিকাদান কর্মসূচি দ্রুত গতিতে এগিয়ে নেয় স্থানীয় ও কেন্দ্রীয় সরকার।

অবশেষে তার সুফল পেতে শুরু করেছে দেশটি। গত দু’দিন ধরে ভারতে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা কমেছে উল্লেখযোগ্য হারে। হাসপাতালগুলোতেও চাপ অনেকটা কমে এসেছে। তবে, তৃতীয় ঢেউ নিয়ে সতর্ক অবস্থায় থাকতে বলেছে বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে, শনাক্ত কমায় সোমবার থেকে ব্যবসা বাণিজ্যের গতি বাড়ানোর পরিকল্পনা করছে দিল্লি কর্তৃপক্ষ। আর এজন্য চলমান লকডাউন শিথিলের পক্ষে নিজের মত দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল। লকডাউন শিথিল হচ্ছে করোনায় বিপর্যস্ত রাজ্য মহারাষ্ট্রেও। ভারতে এখন পর্যন্ত করোনায় আক্রান্ত হয়েছে দুই কোটি ৮৯ লাখের বেশি মানুষ। আর মারা গেছে প্রায় সাড়ে তিন লাখ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *