বাগেরহাট প্রতিনিধি:

জেলার শরণখোলায় দিত্বীয় স্ত্রীকে হত্যা করে লাশ ঘুমের অভিযোগে এক পুলিশ সদস্যকে গ্রেফতার করা হয়েছে।গ্রেফতাকৃত পুলিশ সদস্যের নাম সাদ্দাম হোসেন। সে শরণখোলা পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত ছিল।

প্রাথমিকভাবে পুলিশ ধারনা করছে পারিবারিক কলহের জেরে স্ত্রী জ্যোৎস্না বেগমকে (৩৫)শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছিল। স্ত্রীকে হত্যার পর সাদ্দাম গলা কেটে পলিথিনে ভরে বাসার পাশে পরিত্যক্ত একটি বাড়িতে লাশ ঘুম করতে চেয়েছিল।

প্রতিবেশিরা বুজতে পেরে থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে ঘাতককে আটক করে মরদেহ উদ্ধার করে।নিহত জ্যোৎস্না বেগমের এটি ছিল দিত্বীয় বিয়ে। জ্যোৎস্না ৬ মাসের অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। তার বাড়ি খুলনার রূপসা উপজেলায়।আগের সংসারের ৬বছরের ছেলেকে নিয়ে সাদ্দামের সাথেই থাকতো। সাদ্দামের প্রথম স্ত্রী শশুর-শাশুড়ির সাথে সাতক্ষীরায় থাকেন।

শরণখোলা থানার ওসি সাইদুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার রাত ১১টার দিকে সাদ্দাম তার স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করে। পরে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে লাশ পলিথিনে মুড়িয়ে বস্তায় ভরে লুকিয়ে রাখে। ওই রাতেই খবর পেয়ে পুলিশ শরণখোলার তাফালবাড়ি বাজার এলাকার মামুন ভিলায় অভিযান চালায়। সেখান থেকে সাদ্দামকে আটকের পর পরিত্যক্ত একটি ঘর থেকে বস্তাবন্দি জ্যোৎস্নার লাশ উদ্ধার করা হয়।

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *